Kotkoti

′′ কোটকটি ′′ বাংলাদেশের অনেক পুরনো এবং ঐতিহ্যবাহী রাস্তার খাবার । আজকাল দেখা যায় না খুব বিরল । WAMC এর পক্ষ থেকে, আমি এই রেসিপিটি সবার জন্য উপস্থাপন করতে চাই ।এটা স্বাস্থ্যকর নয় কিন্তু সুস্বাদু । আমাদের ছোট বেলার প্রিয় খাবার গুলোর একটি ছিল । পুরাতন কাপড়, পোটারি ও কাচের বোতল বিনিময়ের সাথে বিক্রি হলো ‘কটকটি’ চিনি এবং বেকিং সোডা এই কটকটি তৈরির জন্য দুটি উপাদান ।

মুরালি

মুরালি
উপকরণ : ময়দা ২৫০ গ্রাম। তেল –১ টেবিল চামচ, মসুরের ডাল বাটা ১০০ গ্রাম। লবণ -সামান্য, চিনি- ১কাপ,পানি—আধা কাপ পরিমাণমতো। ভাজার জন্য তেল- পরিমানমত।

প্রণালি : একটি পাত্রে ময়দা, লবণ এবং তেল দিন। এতে বাটা মসুর ডাল দিয়ে আবার ভালো করে মাখিয়ে একটিশক্ত ডো তৈরি করুন। পানি ও চিনি দিয়ে সিরা তৈরি করুন। এ থেকে পরিমাণমতো ডো নিয়ে রুটির মতো বেলেলম্বা লম্বা করে কেটে নিন। এরপর ডুবো তেলে মচমচে করে ভেজে তুলুন। গরম থাকতেই ভাজা মুরালিগুলো সিরায় দিয়ে কিছুক্ষণ নেড়ে নামিয়ে ঠাণ্ডা করে পরিবেশন করুন।

চেপা শুটকির পাতুরি

উপকরণঃ শুঁটকি –৮ টা, পেঁয়াজ —আধা কাপ, রসুন –আধা কাপ, শুকনা মরিচ —২ টা, কাঁচামরিচ —২ টা, সরিষার তেল –অল্প , লবন –পরিমানমতো

প্রণালীঃ প্রথমে শুঁটকি ভাল করে ধুয়ে নিতে হবে। পেঁয়াজ রসুন কেটে টুকরা করে রাখতে হবে। মোটা তাওয়ার মাঝে অল্প তেল দিয়ে শুঁটকি টেলে নিতে হবে। তারপর পেঁয়াজ,রসু্ন,শুকনা মরিচ,কাঁচামরিচ আলাদা আলাদা করে টেলে নিতে হবে।
মরিচ আলাদা করে বেটে নিতে হবে। অন্য সব কিছু একসাথে চেঁছে তুলে রাখতে হবে। পরে ঝাল ও লবন নিজের ইচ্ছামত মিশিয়ে মাখাতে হবে। এটা হল ভর্তা।
বড়া করার জন্যঃ
কাঁকরোল পাতা বা কুমড়া পাতা ধুয়ে কাপড় দিয়ে ভাল করে মুছে তার ভিতর এই ভর্তা দিয়ে মুড়িয়ে সেকা তেলে ভাজতে হবে।

তন্দুরি চা

অসাধারণ স্বাদের তন্দুরি চা করুন বাড়িতেই

তন্দুরি চা

যা যা লাগবেঃ

দুধ : ২ কাপ এলাচি : ২ কাপ চা পাতা ৩ চা চামচ চিনি: ১ চা চামচ।

কিভাবে করবেন:

১.চুলার মধ্যে একটা মাটির হাড়ি ঘুড়িয়ে ঘুড়িয়ে সবদিকে পোড়াতে হবে। মাটির পাত্রে যেন কোন রং বা কাজ করা না থাকে, এটা কাঠ-কয়লার আগুনে পুড়ে নেওয়া হয়, তবে গ্যাসের চুলায়ও করতে পারেন।

২.একটা চুলায় মাটির হাঁড়ি বসিয়ে দিয়ে অন্য চুলাতে একটা সসপ্যানে দুই কাপ লিকুইড দুধ জ্বাল দিন। দুই তিনটা এলাচি দিয়ে দিন।

৩. ভালোভাবে জাল উঠলে ৩ চা চামচ চা পাতা দিয়ে জাল দিন। চিনি দিয়ে দিন।

৪. এবার চা এর কালার চলে আসলে চুলা বন্ধ করে ছেঁকে নিন।

৫ । পাশের চুলায় চারদিকে মাটির পাত্র টা পুড়ে গেলে, সেটা নামিয়ে একটা হাড়ির মধ্যে পুড়ানো মাটির পাত্র টা রেখে তার মধ্যে চা টা ঢেলে দিন। বুদবুদ উঠবে চায়ের মধ্যে কিছুক্ষণ, এইভাবে কিছুক্ষণ রাখার পর মাটির কাপে ঢেলে পরিবেশন করুন।

তালের শাঁসের জুস

যা যা লাগবে ঃ

  • কাচা তালের বিচি  ৪ টা
  • চিনি—৪ টেবিল চামচ
  • বরফ কুচি—১ কাপ
  • পানি – ৪ গ্লাস
  • লবন – ১ চিমটি
  • পুদিনা পাতা ও লেবু স্লাইস  পরিবেশনের জন্য – পরিমানমত ।

কিভাবে করবেন ঃ

১। তালের বিচির উপরের খোসাটা ফেলে ,তার সাথে পানি,লবন,চিনি দিয়ে  ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে নিন।

২। গ্লাসে প্রথমে পুদিনা ও লেবু দিয়ে তার উপরে বরফ দিন। তারপরে জুস ঢেলে দিন। উপরে পুদিনা পাতা ও লেবু স্লাইস দিয়ে পরিবেশন করুন।

1 2 3 4