মুরালি

মুরালি
উপকরণ : ময়দা ২৫০ গ্রাম। তেল –১ টেবিল চামচ, মসুরের ডাল বাটা ১০০ গ্রাম। লবণ -সামান্য, চিনি- ১কাপ,পানি—আধা কাপ পরিমাণমতো। ভাজার জন্য তেল- পরিমানমত।

প্রণালি : একটি পাত্রে ময়দা, লবণ এবং তেল দিন। এতে বাটা মসুর ডাল দিয়ে আবার ভালো করে মাখিয়ে একটিশক্ত ডো তৈরি করুন। পানি ও চিনি দিয়ে সিরা তৈরি করুন। এ থেকে পরিমাণমতো ডো নিয়ে রুটির মতো বেলেলম্বা লম্বা করে কেটে নিন। এরপর ডুবো তেলে মচমচে করে ভেজে তুলুন। গরম থাকতেই ভাজা মুরালিগুলো সিরায় দিয়ে কিছুক্ষণ নেড়ে নামিয়ে ঠাণ্ডা করে পরিবেশন করুন।

চেপা শুটকির পাতুরি

উপকরণঃ শুঁটকি –৮ টা, পেঁয়াজ —আধা কাপ, রসুন –আধা কাপ, শুকনা মরিচ —২ টা, কাঁচামরিচ —২ টা, সরিষার তেল –অল্প , লবন –পরিমানমতো

প্রণালীঃ প্রথমে শুঁটকি ভাল করে ধুয়ে নিতে হবে। পেঁয়াজ রসুন কেটে টুকরা করে রাখতে হবে। মোটা তাওয়ার মাঝে অল্প তেল দিয়ে শুঁটকি টেলে নিতে হবে। তারপর পেঁয়াজ,রসু্ন,শুকনা মরিচ,কাঁচামরিচ আলাদা আলাদা করে টেলে নিতে হবে।
মরিচ আলাদা করে বেটে নিতে হবে। অন্য সব কিছু একসাথে চেঁছে তুলে রাখতে হবে। পরে ঝাল ও লবন নিজের ইচ্ছামত মিশিয়ে মাখাতে হবে। এটা হল ভর্তা।
বড়া করার জন্যঃ
কাঁকরোল পাতা বা কুমড়া পাতা ধুয়ে কাপড় দিয়ে ভাল করে মুছে তার ভিতর এই ভর্তা দিয়ে মুড়িয়ে সেকা তেলে ভাজতে হবে।

বাড়িতে তৈরি বিভিন্ন জীবাণুনাশক

 জরুরি প্রয়োজনে বাড়িতে নিজেই তৈরি করে নিতে পারেন কিছু জীবাণুনাশক

১. লিকোইড সোপ

২. হ্যান্ড স্যানিটাইজার

৩. ব্লিচিং পাউডার মিক্সার

৪. সেভলন পানি

১.লিকোইড সোপ ঃ কম খরচে লিকোইড সোপ বানাতে হলে দেড় লিটার পানিতে ৪ চা চামচ ডিটারজেন্ট পাউডার মিশিয়ে বোতলে ভরে নিন। এটা বাড়ির গেইটের কাছে রেখে দিন হাত ধোয়ার জন্য। এছাড়াও স্কিনের ময়েশ্চার ধরে রাখার জন্য আরও উপাদান মিশানো হয়। তবে সহজে ও কম খরচে বানানোর জন্য এটাই যথেষ্ট ।

২.হ্যান্ড স্যানিটাইজারঃ আইসো প্রোপাইল অ্যালকোহল ৭৩৮ মিলি, গ্লিসারিন ঃ ১০ মিলি,লেমন ফ্লেভারঃ ৫ মিলি, ডিস্টিল ওয়াটার ঃ ২৪৭ মিলি। এটা শুধুমাত্র বাহিরে থাকা অবস্থায় হাতে ব্যবহার করুন। এটা দিয়ে রান্নাঘরে কাজ করবেন না। ঘরে থাকা অবস্তায় এটা ব্যবহার না করলেও চলবে।

৩. ব্লিচিং পাউডার মিক্সারঃ ২০ লিটার পানিতে ১ টেবিল চামচ (১৫গ্রাম) ব্লিচিং পাউডার মিশিয়ে নিন। এটা বোতলে ভরে স্পে করে ফ্লোর,আসবাবপত্র,জুতায় ও ঘরে বাহিরে ব্যবহার করতে পারেন। তবে সরাসরি স্কিনে ব্যবহার করবেন না। এই মিশ্রণ ২৪ ঘণ্টার মাঝে শেষ করে ফেলুন,রেখে দিনের পরদিন ব্যাবহার করবেন না ।

৪. সেভলন পানিঃ হাতের কাছে কিছুই না থাকলে, ৫০০ মিলি পানিতে ৫০ মিলি সেভলন মিশিয়ে হাতে, কাপড়ে ব্যবহার করতে পারেন।

পরিচ্ছন্ন থাকুন ! নিরাপদ থাকুন !

BTV Eid Special Program, Shotorupa

রান্নার পরে আমার ভালো লাগে ইন্টেরিয়ার, তাই ঈদ স্পেশাল গৃহসজ্জা পর্বে এবার আমার কিছু গৃহসজ্জা

Kotkoti

′′ কোটকটি ′′ বাংলাদেশের অনেক পুরনো এবং ঐতিহ্যবাহী রাস্তার খাবার । আজকাল দেখা যায় না খুব বিরল । WAMC এর পক্ষ থেকে, আমি এই রেসিপিটি সবার জন্য উপস্থাপন করতে চাই ।এটা স্বাস্থ্যকর নয় কিন্তু সুস্বাদু । আমাদের ছোট বেলার প্রিয় খাবার গুলোর একটি ছিল । পুরাতন কাপড়, পোটারি ও কাচের বোতল বিনিময়ের সাথে বিক্রি হলো ‘কটকটি’ চিনি এবং বেকিং সোডা এই কটকটি তৈরির জন্য দুটি উপাদান ।

ঈদ স্পেশাল কুকিং প্রোগ্রাম,SATV

মেকআপ ও শাড়ি ডিজাইন করেছি আমি। আধাঘণ্টায় রেসিপি রেডি করে, নিজে রেডি হয়ে,বাকি আধাঘণ্টায় স্টুডিওতে গিয়ে,ক্যামেরার সামনে রান্না করে, বাসায় চলে এসেছি, এটা কিভাবে সম্ভব, বিশ্বাসই হচ্ছে না 😊আমার রেডি হতে বেশি সময় লাগেনা। রাস্তায় ট্রাফিক জ্যাম ছিল না, শুটিংয়ে কোন ওয়েটিং ছিলনা, রান্না করতেও সময় লাগেনি। প্রতিটা দিন যদি এভাবে পার করতে পারতাম 😊

করমচা

করমচা ছোট একটা ড্রামসহ এই করমচা গাছটা কিনেছিলাম পনেরশো টাকা দিয়ে, কিনার আগে অসংখ্যবার ভেবেছি পনেরশো টাকা দিয়ে কিনব না কিনব না। যেখানে আমি ৪০ /৫০ টাকা দিয়ে চারা কিনে অভ্যস্ত। এখন বছরে দুই বার যখন দেখি পুরা গাছ ভরে এই ফল ধরে আছে, তখন আর সেই টাকার কষ্ট একদমই থাকে না। এই ফলটা দিয়ে জেলি খুবই ভালো হয় তাতে কোনো বাড়তি জিলাটিন, পেকটিন ও কালার কোন কিছুই দিতে হয় না। এছাড়াও টক রান্না করতে পারেন কালোজিরা আর রসুন বাগার দিয়ে। তৈরি করতে পারেন ঝাল কোন জুস। কিন্তু শুধু কাঁচা ফলটা দিয়ে কোন জুস কখনোই ভালো লাগবে না।

1 2 3 14